সোমবার, ০৮ অগাস্ট ২০২২, ০৪:৫৪ অপরাহ্ন
নোটিশ
যে সব জেলা, উপজেলায় প্রতিনিধি নেই সেখানে প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। বায়োডাটা সহ নিউজ পাঠান। Email: [email protected]

সব রাঘব বোয়াল সামনে আসবে: শ্রীলেখা

Reporter Name
Update : সোমবার, ২৫ জুলাই, ২০২২, ৮:৫৮ অপরাহ্ন

পশ্চিমবঙ্গের শিল্পমন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের ঘনিষ্ঠজন অভিনেত্রী ও মডেল অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের বাড়ি থেকে ২১ কোটি টাকা উদ্ধার করা হয়েছে। শিল্পমন্ত্রী পার্থ ও অর্পিতা দুজনই গ্রেফতার হয়েছেন। এ নিয়ে এক প্রতিক্রিয়ায় টলিউডের অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্র বলেছেন, ‘একে একে সব রাঘব বোয়াল সামনে আসবে। কথায় আাছে না, কান টানলে মাথা আসে। এবার বড় বড় মাথারা ধরা পড়বে।’ পুরোনো কেসগুলোও দেখার আহ্বান জানিয়েছেন শ্রীলেখা মিত্র।

এ ঘটনা নিয়ে নানা মুণির নানা মতো। ঠিক এই সময় সোশ্যাল মিডিয়ায় একের পর এক বোমা ফাটাচ্ছেন অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্র। পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের গ্রেপ্তারি নিয়ে শ্রীলেখা তাঁর এক পোস্টে লিখলেন, ‘বাকি সবার পোস্ট দেখছি। কী মিষ্টি করে পার্থ কাণ্ড এড়িয়ে অন্য রকমারি পোস্ট দিচ্ছে। যেন কী হয়েছে জানেই না!

চলচ্চিত্রে কম কাজ করা প্রসঙ্গে শ্রীলেখা বলেন, ‘পুরো চলচ্চিত্র জগৎই এখন রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বদের দ্বারা পরিচালিত। আমাকে ২১ জুলাই মঞ্চে দেখা যায় না। আমি মিছিলে হাঁটি না। একটি অন্য কোনও দলের সমর্থক বলে তিন মাস কোনও কাজের সুযোগ আসেনি। ধারাবাহিকের জন্য বলেছিলেন এক জন, কিন্তু আমি এখন মেগাতে কাজ করব না।’ ন্যায়বিচার করা হোক, এখন আপাতত সেটাই দাবি অভিনেত্রীর।
উল্লেখ্য, পশ্চিমবঙ্গে শিক্ষক নিয়োগ (এসএসসি স্ক্যাম) দুর্নীতি মামলায় গ্রেফতার হয়েছেন রাজ্যের সাবেক শিক্ষামন্ত্রী ও বর্তমান শিল্পমন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। শুক্রবার সকাল থেকে টানা ম্যারাথন জিজ্ঞাসাবাদের পর বেহালা পশ্চিম বিধানসভা কেন্দ্রের তৃণমূল কংগ্রেস বিধায়ককে গ্রেফতার করে ভারতের কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট’র (ইডি) কর্মকর্তারা।

পার্থ চট্টোপাধ্যায় রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী থাকাকালীন ২০১৭ সাল থেকে শিক্ষক নিয়োগে বেনিয়মের অভিযোগ ওঠে। অর্থের বিনিময় অনেককে চাকরি পাইয়ে দেবার অভিযোগ ওঠে সেসময়। ফলে মেরিট লিস্টে নাম না থাকা সত্ত্বেও কেবলমাত্র রুপির জোরে অনেকেই চাকরি পেয়ে যান।
ওই অভিযোগ আসার পরেই কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশে তদন্তের ভার হাতে নেয় কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা সিবিআই। তারা মূলত এই মামলার ফৌজদারির দিকটি দেখছে। কাদের হাত ধরে এই দুর্নীতি হয়েছে তা খোঁজার চেষ্টা চালাচ্ছে সিবিআই-এর তদন্তকারী কর্মকর্তারা। অন্যদিকে এই মামলায় আর্থিক দুর্নীতির দিকটি খতিয়ে দেখছে ইডির কর্মকর্তারা। তারই অংশ হিসেবে শুক্রবার রাজ্যের অন্তত ১৪টি জায়গায় তল্লাশি অভিযান চালায় ইডি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category
Theme Created By Uttoron Host