বৃহস্পতিবার, ২৯ জুলাই ২০২১, ০৯:১৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম
নোটিশ
যে সব জেলা, উপজেলায় প্রতিনিধি নেই সেখানে প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। বায়োডাটা সহ নিউজ পাঠান। Email: [email protected]

বিদ্রোহী প্রার্থীর দলীয় পদ প্রত্যাহার চেয়ে প্রধানমন্ত্রীর কাছে আওয়ামীলীগ নেতার আবেদন

Reporter Name
Update : শনিবার, ৩ এপ্রিল, ২০২১, ১১:১২ পূর্বাহ্ন

পিরোজপুর প্রতিনিধি : পিরোজপুরের নাজিরপুর উপজেলায় দলীয় প্রার্থীর বিরুদ্ধে উপজেলা নির্বাচনে অংশ নেওয়া স্বেচ্ছাসেবকলীগের কেন্দ্রীয় নেতার দলীয় পদ প্রত্যাহার চেয়েছেন শীর্ষস্থানীয় এক আওয়ামীলীগ নেতা। নৌকা প্রতীকের বিরুদ্ধে দোয়াত কলম নিয়ে নির্বাচন করে বহিঃস্কার হওয়া দিপ্তীশ কুমার হালদারের পুনরায় পাওয়া দলীয় পদ বাতিলের জন্য দলীয় সভানেত্রী ও প্রধান মন্ত্রী বরাবর সম্প্রতি আবেদন করেন জেলা আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা ও উপজেলা চেয়ারম্যান মাস্টার অমূল্য রঞ্জন হালদার।
জানা যায়, গত নির্বাচনে নাজিরপুর উপজেলা চেয়ারম্যান পদে আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হিসাবে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করে দল থেকে বহিঃস্কার হওয়া দিপ্তীশ কুমার হালদার স্বেচ্ছা সেবক লীগের বর্তমান কেন্দ্রীয় কমিটিতে কার্য নির্বাহী সদস্য হিসাবে পদ পেয়েছে। দলের সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে চলতি বছরের ফেব্রুয়ারীতে দেয়া ওই আবেদনের মাধ্যমে জানা গেছে, গত ২০১৯ সালের ৩১ মার্চ জেলার নাজিরপুর উপজেলা পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে আওয়ামীলীগের দলীয় মনোনয়ন ও নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচিত হন জেলা আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা ও উপজেলা চেয়ারম্যান মাস্টার অমূল্য রঞ্জন হালদার। ওই নির্বাচনে আ’লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হিসাবে দোয়াত কলম প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করেন দিপ্তীশ কুমার হালদার। সে সময় দলীয় প্রার্থীর বিরুদ্ধে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করায় ওই দিপ্তীষ কুমার হালদারকে দল থেকে বহিস্কার করা হয়। ওই আবেদনে আরো উল্লেখ করা হয় বিদ্রোহী প্রার্থী ও বর্তমান কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছসেবকলীগ নেতাকে সে সময় বিএনপি-জামায়াতের মদদে দলের মধ্যে বিশৃংখলা সৃষ্টির জন্যে তাকে প্রার্থী করা হয়। এ ব্যাপারে স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা দিপ্তীষ কুমার হালদার সাংবাদিকদের জানান, আমি নির্বাচন করেছি তাতো মিথ্যা নয়। তিনিতো অভিযোগ দিতেই পারেন।
এ বিষয়ে জেলা আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা ও নাজিরপুর উপজেলা চেয়ারম্যান মাস্টার অমূল্য রঞ্জন হালদার জানান, দলের বিদ্রোহী হিসাবে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করার অভিযোগে ওই দিপ্তীশ কুমার হালদারকে তখন দল থেকে বহিস্কার করা হয়। পরে স্বেচ্ছা সেবকলীগের কেন্দ্রীয় কমিটিতে স্থান পাওয়ায় সংগঠনের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হয়েছে। তাই দলের সভাপতি’র কাছে তাকে সংগঠনের পদ থেকে প্রত্যাহার চেয়ে এ আবেদন করেছি। তিনি আরো জানান, নির্বাচনে দিপ্তীশ কুমার হালদারের নেতৃত্বে তখন আমার নির্বাচনী ক্যাম্পে হামলা , অগ্নি সংযোগ ও কর্মীদের মারধর করে আহত করে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
Theme Created By Uttoron Host