শুক্রবার, ৩০ জুলাই ২০২১, ০৩:৫৪ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
নোটিশ
যে সব জেলা, উপজেলায় প্রতিনিধি নেই সেখানে প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। বায়োডাটা সহ নিউজ পাঠান। Email: [email protected]

রাশিয়ার এক ডোজের টিকা ভারতে তৈরী হবে

Reporter Name
Update : শুক্রবার, ৭ মে, ২০২১, ৯:৫৩ পূর্বাহ্ন

নিউজ ডেস্ক: ভারতেই উৎপাদন হবে রুশ করোনা টিকা ‘স্পুটনিক লাইট’। একটি ডোজের এই করোনা টিকা আগামী কয়েক মাসে ভারত ছাড়াও আরও বেশ কিছু দেশে উৎপাদিত হবে বলে জানা গেছে। বৃহস্পতিবার এমনটাই জানিয়েছেন এই টিকার প্রস্তুতকারকরা।

রাশিয়ার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এবং গামালেয়া ন্যাশানাল রিসার্চ সেন্টার ফর এপিডেমিয়োলজি অ্যান্ড মাইক্রোবায়োলজি’র যৌথ উদ্যোগে তৈরি হয়েছে এই করোনা টিকা। বিনিয়োগ করেছে রাশিয়ান ডিরেক্ট ইনভেস্টমেন্ট ফান্ড (RDIF)। বুধবারই রাশিয়ায় প্রয়োগের ছাড়পত্র মিলেছে বলে জানিয়েছেন প্রস্তুতকারকরা।

রাশিয়ান ডিরেক্ট ইনভেস্টমেন্ট ফান্ডের সিইও কিরিল দিমিত্রিয়েভ সংবাদসংস্থা ব্লুমবার্গকে জানিয়েছেন, রাশিয়ায় প্রধানত স্পুটনিক-ভি ব্যবহার করা হবে। যে সকল দেশে করোনার সংক্রমণ বাড়ছে, সেই দেশে স্পুটনিক লাইট টিকা ব্যবহার করা হবে।

কার্যকারিতা

রাশিয়ার গণটিকাকরণ প্রোগ্রামের অংশ হিসেবে এই টিকার প্রয়োগ করা হয়েছে। মোট ২৮ দিন ধরে টিকাকরণ ও তার পরবর্তী প্রভাবের তথ্য সংগ্রহ করেন গবেষকরা। সংস্থা জানিয়েছে, এই টিকা প্রায় ৭৯.৪% কার্যকর।

দুটি পর্যায়ের পর্যবেক্ষণে দেখা গেছে, স্পুটনিক লাইট প্রয়োগের ২৮ দিনের মাথায় ৯৬.৯% ব্যক্তির শরীরে অ্যান্টিজেন স্পেসিফিক igG অ্যান্টিবডি তৈরি হয়েছে।

তৃতীয় ধাপে মোট ৭ হাজার ব্যক্তিকে এই টিকা দেওয়া হয়। শুধু রাশিয়া নয়, সংযুক্ত আরব আমিরাত এবং ঘানাতেও প্রয়োগ করা হয়েছে। চলছে পর্যবেক্ষণ। মে মাসেই এর নতুন কার্যকারিতা রিপোর্ট আসার কথা। করোনার নয়া স্ট্রেইনগুলোর বিরুদ্ধেও ‘স্পুটনিক লাইট’ যথেষ্ট কার্যকর বলে জানিয়েছে প্রস্তুতকারী সংস্থা।

টিকা গ্রহণকারীদের মধ্যে কোনও গুরুতর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দেয়নি।

এটি সংক্রমণের সম্ভাবনা কমাতে সক্ষম। টিকা গ্রহণের ২৮ দিনের মাথায় সংক্রমিত হওয়ার হার ছিল ০.২৭৭% । এই একই সময়ের মধ্যে টিকা গ্রহণ না করা প্রাপ্তবয়স্কদের মধ্যে সংক্রমণের হার ছিল ১.৩৪৯% ।

এছাড়া এর সবচেয়ে বড় সুবিধা হল যে এটি সিঙ্গেল ডোজের। ফলে একবার টিকা নিলেই নিশ্চিন্ত। টিকাকরণ প্রসেসে এটি যথেষ্ট গতি আনবে।

অন্যান্য কিছু টিকার মতো বিশেষ ফ্রিজারে খুব কম তাপমাত্রায় রাখার প্রয়োজন নেই। সাধারণ ফ্রিজারে ২-৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসেই সংরক্ষণ করা যাবে।

দাম

প্রস্তুতকারক সংস্থা জানিয়েছে, আন্তর্জাতিক বাজারে এই টিকার দাম ১০ মার্কিন ডলারের আশেপাশে হবে। সূত্র: হিন্দুস্তান টাইমস


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
Theme Created By Uttoron Host