মঙ্গলবার, ০৯ অগাস্ট ২০২২, ১২:৩৭ পূর্বাহ্ন
নোটিশ
যে সব জেলা, উপজেলায় প্রতিনিধি নেই সেখানে প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। বায়োডাটা সহ নিউজ পাঠান। Email: [email protected]

বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তিতে ডোপ টেস্ট বাধ্যতামূলক হচ্ছে

শাহিবুল ইসলাম এশিয়া
Update : মঙ্গলবার, ৯ মার্চ, ২০২১, ২:৩০ পূর্বাহ্ন

শাহিবুল ইসলাম এশিয়া: এখন থেকে উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তির আগে প্রত্যেক শিক্ষার্থীর ডোপ টেস্ট বাধ্যতামূলক করা হচ্ছে। যেসব শিক্ষার্থী ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হবে শুধুমাত্র সেসব শিক্ষার্থীর ডোপ টেস্ট করা হবে। সরকারি প্রতিষ্ঠান থেকে শুরু হওয়ার পর সরকার নিয়ন্ত্রিত সব বেসরকারি উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এ কার্যক্রম ছড়িয়ে দেয়া হবে।

যাদের ডোপ টেস্টে মাদক সেবনের নমুনা পাওয়া যাবে তারা ভর্তির অযোগ্য হিসেবে বিবেচিত হবেন। সরকার ও সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান এক্ষেত্রে জিরো টলারেন্স অবলম্বন করবে। কোনো সুপারিশ গ্রহণযোগ্য হবে না। একাদশ জাতীয় সংসদের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির ১২তম বৈঠকের কার্যবিবরণীতে ৬.৪ ধারা থেকে এ তথ্য জানা যায়। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের উপ-সচিব (প্রশাসন-১) মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম মজুমদার স্বাক্ষরিত ওই পত্রটি ইতিমধ্যে সংশ্লিষ্ট সকল প্রতিষ্ঠানে পাঠানো হয়েছে। এ কার্যক্রমটি দ্রুত শুরু হবে বলে জানা গেছে।

৬.৪ ধারায় উল্লেখ করা হয়েছে যে, উচ্চতর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভর্তির পূর্বে ও চূড়ান্ত পরীক্ষায় অবতীর্ণ হওয়ার পূর্বে ‘ডোপ টেস্ট- বিশেষ স্বাস্থ্য পরীক্ষা বাধ্যতামূলক করার বিষয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগ হতে সচিব, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগ এবং সচিব কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগ, শিক্ষা মন্ত্রণালয় বরাবরে ডোপ টেস্ট/বিশেষ স্বাস্থ্য পরীক্ষা বাধ্যতামূলক করার বিষয়ে পত্র প্রেরণ করা হলো।

এতে বলা হয়েছে যে, দেশব্যাপী মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ কার্যক্রম আরো গতিশীল ও জোরদার করার লক্ষ্যে প্রায় ৬৩ কোটি টাকা ব্যয়ে ৩ বছর মেয়াদি ‘মাদকাসক্ত শনাক্তকরণ ডোপ টেস্ট প্রবর্তন (প্রথম পর্যায়) শীর্ষক প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে।

এছাড়াও ‘ডোপ টেস্ট বিধিমালা ২০২০’ ভেটিং এর জন্য আইন ও বিচার বিভাগে প্রেরণ করা হয়েছে বলে সংসদের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটিকে অবহিত করা হয়েছে। মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার মাধ্যমে মাদকের বিরুদ্ধে সর্বাত্মক প্রচার-প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছে।

সূত্র জানায়, দেশের মাদকসেবী দিন দিন বাড়ছে। শিক্ষার্থীরা নানা কারণে মাদকে ঝুঁকে পড়ছে। এতে অনেকেরই শিক্ষাজীবন শেষ হয়ে যাচ্ছে। তাদের ভবিষ্যৎ হয়ে যাচ্ছে অন্ধকারাচ্ছন্ন। কেউ কেউ মাদক না পেয়ে নিজ পরিবারের সদস্যদের হত্যা করতে দ্বিধা করছে না। কোনো কোনো শিক্ষার্থী ছিনতাই, চুরি ও চাঁদাবাজিতে লিপ্ত হচ্ছে। কেউ কেউ অকালে কারাগারে দিন কাটাচ্ছে। এতে দেশে সামাজিক অস্থিরতা বৃদ্ধি পাচ্ছে। এর প্রভাব পড়ছে দেশের শিক্ষা খাতে। মাদকের কারণে দেশের ভবিষ্যৎ অনেক শিক্ষার্থীর জীবন নিমেষেই শেষ হয়ে যাচ্ছে।
সূত্র জানায়, ছাত্রজীবন থেকে যাতে সবাই মাদকের বিষয়ে সচেতন হয় এজন্য উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তির আগে উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের ডোপ টেস্ট করার উদ্যোগ নিয়েছে কর্তৃপক্ষ। ডোপ টেস্ট চালু হলে এ বিষয়ে সবার সচেতনতা বাড়বে। সূত্র জানায়, বড় বড় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভর্তির আগে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর থেকে ওইসব প্রতিষ্ঠানে অস্থায়ী ক্যাম্প বসানো হবে। ওই ক্যাম্পগুলোতে ডোপ টেস্ট করা হবে উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের। পুরুষ ও নারী শিক্ষার্থীদের জন্য আলাদা আলাদা ডোপ টেস্টকারী থাকবেন।

ডোপ টেস্টের ফলাফল দিতে খুব একটা সময়ক্ষেপণ করা হবে না। যাতে সঠিক সময়ের মধ্যে ওই শিক্ষার্থী উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তি হতে পারেন। ডোপ টেস্টের একটি সনদ দেয়া হবে শিক্ষার্থীদের। যাতে অন্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভর্তি বা অন্যান্য সেবা নেয়ার সময় তিনি ওই সনদটি দেখাতে পারেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category
Theme Created By Uttoron Host