শুক্রবার, ০১ জুলাই ২০২২, ১১:৩১ অপরাহ্ন
নোটিশ
যে সব জেলা, উপজেলায় প্রতিনিধি নেই সেখানে প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। বায়োডাটা সহ নিউজ পাঠান। Email: [email protected]

ঝিনাইদহে কলা গাছের সাথে শত্রুতা

মোঃ শাহানুর আলম, স্টাফ রিপোর্টার
Update : রবিবার, ১৯ জুন, ২০২২, ৫:১২ অপরাহ্ন

ঝিনাইদহ প্রতিনিধিঃ ঝিনাইদহের হরিণাকুণ্ডু উপজেলার ভায়না ইউনিয়নের বাকচুয়া গ্রামের আকুল মন্ডলের ৪০ শতাংশ জমির ১’শ টি ইন্ডিয়ান (জয়েন্ট) সাগর কলাগাছ রাতের আধারে কেটে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। শনিবার গভীর রাতে দূর্বৃত্তরা উন্নত জাতের কলা গাছ কাঁটে দেওয়ায় প্রায় লক্ষাধিক টাকার ক্ষয় ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি করেছেন ভুক্তভোগী কৃষক।
ক্ষতিগ্রস্থ কৃষক আকুল মন্ডল জানান,বাকচুয়া গ্রামের সিরাজ মণ্ডলের ছেলে শাহিন সাকালে আমার জমির পাশ দিয়ে কৃষি ক্ষেতে কাজের জন্য যাচ্ছিলো। তখন আমার (ইন্ডিয়ান) সাগর কলা গাছ কাঁটা দেখে আমাকে ফোন করে জানান যে, আপনার কলা গাছ কারাযেন কাঁটে দিয়েছে। আমি শুনে হতবাক হয় এবং ভাবতে থাকি আমি তো কারো কোনও ক্ষতি করেনি তাহলে আমার এমনটি কে করলো? তিনি আরও জানান, আমি বিভিন্ন সময়ে নানা জাতের উন্নতমানের কলাগাছ সংগ্রহ করে আয়বর্ধক ফসল উৎপাদন করে থাকি। এ ব্যাপারে কখনও সরকারীভাবে কোনও সহায়তা আমি পায় নি। সরকারী সহায়তা পেলে আমি এই অঞ্চলের একজন মডেল কৃষক হিসেবে দেখিয়ে দিতাম যে কিভাবে চাষ করতে হয়। আমার খুব ইচ্ছা ছিলো এই ইন্ডিয়ান সাগর (জয়েন্ট) কলাগাছ প্রদর্শনী করার। আমার সে আশাও পুরণ হলো না। তার আগেই দূর্বৃত্তরা আমার জমির ফসল কেটে দিয়ে আমাকে সর্বশান্ত করে দিলো। আমি এর বিচার চাই। একই গ্রামের তুরাব আলী জানান, যেই কাজটি করুক ভালো করেনি। ফসল কেটে দিয়ে খুব ক্ষতি করেছে।
ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ভায়না ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নাজমুল হুদা তুষার বলেন, হরিণাকূণ্ডুতে অনেক ঘটনাই ঘটেছে কিন্তু এখন বাকচুয়া গ্রামে যা হচ্ছে সেটা নজিরবিহীন ঘটনা। বিষয়টি আমি শুনেছি এবং সরজমিনে গিয়ে দেখে এসেছি, যা অত্যান্ত দুঃখজনক।
উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা হাফিজ হাসান সাংবাদিকদের জানান,কলা গাছ কাটার বিষয়ে আমরা শুনার পর দেখে এসেছি। আমার মনে হয় শত্রুতার কারণে এ ধরণের ঘটনা ঘটতে পারে।
যদিও এই কলা গাছ কাটার বিষয়ে আমার অফিস থেকে সরাসরি তেমন কোন সহায়তা দেয়ার সুযোগ নেই। তবে আমি অন্যান্য খাত থেকে তাকে প্রদর্শণী বা অন্য কোন সহায়তা দেয়ার সর্বাত্মক চেষ্টা করবো। উপজেলাতে জি-৯ জাতের টিস্যু কালচার চারা রাজশাহী থেকে আমরা আনিয়ে বেশকিছু প্রদর্শণী দিয়েছি। ফলন এখনও আসেনি। তবে আশা করছি ডাবল ফলন হবে।
এবিষয়ে হরিনাকুণ্ডু থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, যদিও ক্ষতিগ্রস্থ কৃষক কোন লিখিত অভিযোগ দেয়নি, তারপর ও মৌখিক ভাবে জানার পরপরই আমরা ঘটনাস্থলে ফোর্স পাঠিয়েছি। বিষয়টা ক্ষতিয়ে দেখা হচ্ছে। তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও তিনি জানান।

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category
Theme Created By Uttoron Host