শুক্রবার, ০১ জুলাই ২০২২, ১০:১৮ অপরাহ্ন
নোটিশ
যে সব জেলা, উপজেলায় প্রতিনিধি নেই সেখানে প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। বায়োডাটা সহ নিউজ পাঠান। Email: [email protected]

ফকিরহাটে অবৈধ উচ্ছেদ অভিযান

পি কে অলোক
Update : মঙ্গলবার, ১৪ জুন, ২০২২, ৮:৩৬ অপরাহ্ন

পি কে অলোক,ফকিরহাট: বাগেরহাটের ফকিরহাট উপজেলার লখপুর ইউনিয়নের ৪৩নং খাজুরা মৌজার ২নং ওয়ার্ডে অবৈধ উচ্ছেদ অভিযানে প্রায় ১একর সরকারী সম্পত্তি উদ্ধার করেছেন উপজেলা প্রশাসন। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও ভ্রম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ মনোয়ার হোসেন এর নেতৃত্বে এই ভ্রম্যমান আদালতের অভিযান পরিচালনা করা হয়। মঙ্গলবার বিকাল ৪টা থেকে বিকাল সাড়ে ৬টা পর্যন্ত বিরতিহীন ভাবে এই অভিযান পরিচালনা করা হয়।
জানা গেছে, ৪৩নং খাজুরা মৌজার ২নং ওয়ার্ডে ১নং খাস খতিয়ানে এসএ ৯৪৫/৯৩১নং দাগে প্রায় ১একর সরকারী জমি রয়েছে। যে জমিটি সরকারী খাস খতিয়ান ভুক্ত ও সরকারী সম্মত্তি। সেই সরকারী জমিতে এলাকার একটি প্রভাবশালী চক্র ১২টি পরিবারের কাছ থেকে মোটা অংকের অর্থ নিয়ে তাদেরকে গত বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার (২ ও ৩জুন) রাতে ঘর তুলতে বলেন। সে মোতাবেক ১২টি পরিবার ঘর তুললে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শনিবার (৪ঠা জুন) সকালে অবৈধ দখলকারীদের ঘর ভেঙ্গে নেওয়ার নিদ্দেশ প্রদান করেন। কিন্তু তারা তাতে কর্ণপাত না করায় ঐদিনই তাদের ঘর গুলি ভেঙ্গে ফেলে পুনরায় ঘর না তুলার জন্য নিদ্দেশ প্রদান করেন। কিন্তু ১২টি পরিবার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সে নিদ্দেশ অমান্য করে ঐ প্রভাবশালী মহলের ইন্দনে পুনরায় আবারও সেই জমিতে ঘর বাঁেধন। এখানেই দখলকারীরা ক্ষান্ত হননী। উপজেলা প্রশাসনকে উচ্ছেদ অভিযানে যারা সহযোগীতা করেছেন, সেই ইউপি সদস্য মোঃ কবির মোড়লকে ১নং আসামী করে বাগেরহাট বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালত ফকিরহাট-এ ভিন্ন ভিন্ন তারিখে তিনটি মামলা দায়ের করেন। যার মামলা নং পি-৩৯/২২, পি-৩৮/২২ ও পি-৪০/২২। এ ঘটনার পর মঙ্গলবার বিকালে উক্ত অভিযান পরিচালনা করা হয়।
এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মনোয়ার হোসেন এর সাথে আলাপ করা হলে তিনি বলেন, আমরা অবৈধ উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করে বিপুল পরিমানে সরকারী সম্পত্তি উদ্ধার করেছি। এবং যারা সরকারী সম্পত্তির উপর বসতঘর বেধে ছিল তাদের নামে নিয়মিত মামলা রুজু করা হচ্ছে। শুধু তাই নয়, উদ্ধার হওয়া সরকারী সম্পত্তিতে ভূমিহীনদের পূর্নবাসন করার জন্য আশ্রায়ন প্রকল্প (বঙ্গবন্ধু পল্লী) নির্মাণ করা হবে বলেও তিনি জানান। এর আগে তিনি সরকারী সম্পত্তি উদ্ধারে পৃথক পৃথক স্থান পরিদর্শন করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন, লখপুর ইউপি চেয়ারম্যান এমডি সেলিম রেজা, মানসা ইউনিয়ন সহকারী (ভুমি) কর্মকর্তা (নায়েব) মোঃ আকবার আলী, উপজেলা সার্ভেয়ার তোফাজ্জল হোসেন, অফিস সহায়ক আলী আহম্মেদ ও ইউপি সদস্য মোঃ কবির মোড়ল সহ বিভিন্ন ব্যক্তিরা।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category
Theme Created By Uttoron Host