সোমবার, ১৫ অগাস্ট ২০২২, ১২:০৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম
ডুমুরিয়ার মাদরাসায় বঙ্গবন্ধুর শাহাদাত বার্ষিকী পালন প্রধানমন্ত্রী বিরোধীদের আন্দোলনকে স্বাগত জানালেন ফকিরহাটে ১০বছরের সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামী গ্রেপ্তার পিরোজপুরে র‌্যাবের অভিযানে ৭৯ ফেনসিডেল সহ এক যুবকে গ্রেপ্তার শৈলকুপায় বাসচাপায় কৃষক নিহত ফরিদপুরের মধুখালীতে সড়ক দুর্ঘটনায় স্কুল ছাত্র নিহত লালমনিরহাটে সাংবাদিকের উপর হামলার মূল আসামি কুড়িগ্রাম রাজারহাট থেকে গ্রেফতার বোয়ালমারীতে মাথায় ডিম ভেঙে বন্ধুর জন্মদিন পালন, ৬ কিশোর আটক জাতীয় শোক দিবস পালনে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অর্থ সহায়তা দিলেন ভান্ডারিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান মিরাজুল ইসলাম মোহাম্মদপুরে ১৫ ই আগষ্ট উপলক্ষে শিশুদের কবিতা আবৃতি ও চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা
নোটিশ
যে সব জেলা, উপজেলায় প্রতিনিধি নেই সেখানে প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। বায়োডাটা সহ নিউজ পাঠান। Email: [email protected]

খুলনা বিএনপির প্রেস ব্রিফিং

খুলনা প্রতিনিধি
Update : মঙ্গলবার, ২৩ নভেম্বর, ২০২১, ৬:০৭ অপরাহ্ন

খুলনা প্রতিনিধি ঃ খুলনায় পুলিশ আবারো নতুন করে বিএনপি নেতাকর্মীদের উপর নিপীড়ন, হয়রানিমূলক মামলা ও গ্রেপ্তার শুরু করেছে। সরকার রাজনৈতিক কর্মসূচিতে বাঁধা দিচ্ছে বলে অভিযোগ করেছে খুলনা মহানগর ও জেলা বিএনপির নেতারা। মঙ্গলবার (২৩ নভেম্বর) দুপুর ১২ টায় নগরীর কে ডি ঘোষ রোডের দলীয় কার্যালয়ে খুলনায় বিএনপির শান্তিপুর্ন কর্মসুচিতে পুলিশের লাঠিচার্জে ৭১ নেতাকর্মী আহত, ৫জন সাংবাদিক আহত ও ৭জন নেতাকর্মীকে গ্রেফতার এবং পুলিশের দায়েরকৃত মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে আয়োজিত প্রেস ব্রিফিং-এ এসব অভিযোগ করেন কেন্দ্রীয় বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ও মহানগর বিএনপির সভাপতি নজরুল ইসলাম মঞ্জু। তিনি বলেন, সোমবার (২২ নভেম্বর) খুলনায় বিএনপির বিক্ষোভ কর্মসূচিতে পুলিশ বেধড়ক লাঠিচার্জ করে ৭১জন নেতাকর্মীকে আহত করে। উল্টো বিএনপির ৪১ জন নেতাকর্মীর নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাত পরিচয় ১২০জন নেতাকর্মীর
বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করা হয়, পুলিশ সোমবার খুলনায় বিএনপির সিনিয়র নেতাদের নির্দয়ভাবে পিটিয়েছে। পুলিশের স্বেচ্ছাচারিতার চূড়ান্ত রূপ দেখেছে খুলনাবাসি। এর আগে পুলিশ খুলনায় বিএনপি নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে ২০০টি মিথ্যা, গায়েবি মামলা দিয়েছে। অবিলম্বে পুলিশের এই কর্মকা- বন্ধ না হলে ৫ হাজার নেতাকর্মীকে নিয়ে স্বেচ্ছায় কারাবরণের কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে। সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, একটি বিশেষ পরিবারের নির্দেশে পুলিশ এই বেপরোয়া কর্মকা- চালাচ্ছে। তারা আমাদের কাছে রাজনৈতিক শিশু। আমরা পুলিশ নয়, সেই রাজনৈতিক শিশুদের মাঠে চাই। সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে উন্নত চিকিৎসার
জন্য বিদেশে পাঠানোর দাবি জানানো হয়। তিনবারের প্রধানমন্ত্রী, গনতন্ত্রের মা বেগম খালেদা জিয়ার চিকিৎসা নিয়ে সরকার যা করছে তা রাজনৈতিক প্রতিহিংসা ছাড়া আর কিছুই নয়। সরকার প্রধানের বক্তব্যে গোটা জাতির কাছে তা স্পষ্ট হয়েছে। বিএনপির মানবিক কর্মসুচিতে পুলিশের নগ্ন হামলা প্রমান করে সরকারের
পায়ের নিচের মাটি সরে গেছে। সরকার ক্ষমতা হারানোর ভয়ে নিজের ছায়া দেখলেও ভয় পাচ্ছে। রাষ্ট্রীয় পুলিশের সাথে ধস্তাধস্তি-কটুবাক্য ব্যবহার করা রাজনৈতিক দল হিসেবে বিএনপির কাজ নয়; আমাদের প্রতিপক্ষ পুলিশ নয় আওয়ামীলীগ। মঞ্জু আরো বলেন, বিগত ২৯ মার্চ খুলনায় বিএনপির কর্মসুচিতে পুলিশের হামলায় নিহত বাবুল কাজি হত্যা মামলা শীঘ্রই দায়ের করা হবে। পুলিশের নগ্নহামলা বন্ধের আহবান জানিয়ে তিনি বলেন, বিএনপি একটি বৃহৎ রাজনৈতিক দল, তাদের কর্মসুচিতে বাধা দেয়ার কোন অধিকার পুলিশের নেই। সিনিয়র নেতাদের সাথে অসভ্য আচরন, দুর্ব্যবহার, লাঠি দিয়ে নির্মমভাবে পিটিয়ে আহত করা পুলিশের সুনাম ও ঐতিহ্য পরিপন্থি। তিনি অবিলম্বে দায়েরকৃত মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানান। একইসাথে গ্রেফতারকৃতদের নিঃশর্ত মুক্তির দাবি
করেন। সংবাদ সম্মেলনে মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান মনি, শেখ মোশাররফ হোসেন, এড. বজলুর রহমান, এড. ফজলে হালিম লিটন, অধ্যক্ষ তারিকুল ইসলাম, মনিরুজ্জামান মন্টু, মোল্লা খায়রুল ইসলাম, আব্দুর রাকিব
মল্লিক, আবু হোসেন বাবু, মাহবুব কায়সার, আসাদুজ্জামান মুরাদ, মেহেদী  হাসান দিপু, মহিবুজ্জামান কচি, ইকবাল হোসেন খোকন, নিজামুর রহমান লালু, ওয়াহিদুজ্জামান রানা, সাংবাদিক মিজানুর রহমান মিলটন, শামসুজ্জামান চঞ্চল, নিয়াজ আহমেদ তুহিন, কাজী শফিকুর ইসলাম শফি, জাফরী নেওয়াজ চন্দন, আ. মজিদ
মাষ্টার, কাজী মিজানুর রহমান, ওয়াজউদ্দিন সান্টু, আশরাফ হোসেন, জাকির হোসেন, রবিউল ইসলাম রবি, মহিউদ্দিন টারজান, শাহাবুদ্দিন মন্টু, ইমতিয়াজ আলম বাবু, মাজেদা খাতুন, সিরাজুল ইসলাম লিটন, কাজী মাহমুদ আলী, মাওলানা আব্দুল গফ্ফার, শেখ সরোয়ার হোসেন, ওহিদুজ্জামান পান্না, মোল্লা শামসুল বাকির পান্না, মোল্লা আলী আহমেদ, শেখ হেমায়েত হোসেন, তানভীরুল আজমরুম্মান, এনামুল হক সজল, কাজী একরাম মিন্টু, শাহানাজ ইসলাম, শামীম আশরাফ, ডা. ফারুক হোসেন, জাহাঙ্গীর হোসেন, খান মইনুল হাসান মিঠু,  শাহারুজ্জামান মুকুল, বাকার বকসী, জিতু, আলমগীর হোসেন রেহানা ইসলাম, শামীম খানসহ অনেকে
উপস্থিত ছিলেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category
Theme Created By Uttoron Host