শনিবার, ১৩ অগাস্ট ২০২২, ০৬:৪০ অপরাহ্ন
নোটিশ
যে সব জেলা, উপজেলায় প্রতিনিধি নেই সেখানে প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। বায়োডাটা সহ নিউজ পাঠান। Email: [email protected]

মালয়েশিয়ায় যেতে নতুন নিয়ম

Reporter Name
Update : মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর, ২০২১, ৩:৫২ অপরাহ্ন

নিউজ ডেস্ক:  করোনা সংক্রমণ কিছুটা নিয়ন্ত্রণে আসায় মালয়েশিয়ায় বিদেশি কর্মীদের প্রবেশে আর কোনো বাধা থাকছে না। তুলে নেয়া হচ্ছে এ সংক্রান্ত নিষেধাজ্ঞা। ফলে দেশটিতে প্রবেশের অনুমতি পাচ্ছেন বাংলাদেশসহ বিভিন্ন দেশের বিদেশি কর্মীরা। তবে নতুন বিদেশি কর্মীদের প্রবেশে দেশটিতে প্রবেশে বাধ্যতামূলক ৭ দিনের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশনা জারি করেছে দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী দাতুক সেরি হামজা জাইনউদ্দিন।

স্থানীয় সময় মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) দেশটির মানবসম্পদ মন্ত্রী দাতুক সেরি এম সারাভানানের সঙ্গে এক যৌথ বৈঠকের পর সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন।

 
তিনি আরও বলেন, বিদেশি কর্মীদের শুধুমাত্র কুয়ালালামপুর আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর এবং কেএলআইএ-২ হয়ে দেশে প্রবেশ করতে পারে। এছাড়া এসব বিদেশি কর্মীদের সাবাহ এবং সারাওয়াকে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হবে যা পরে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলেও জানান তিনি।
 
এর আগে গত ৩ অক্টোবর মালয়েশিয়ার শিল্প, বৃক্ষরোপণ ও পণ্যমন্ত্রী দাতুক জুরাইদা কামারুদ্দিন জানিয়েছেন অক্টোবর থেকে পর্যায়ক্রমে বাংলাদেশিসহ প্রায় ৩২ হাজার বিদেশি কর্মী আসবে মালয়েশিয়ায়। দেশটির বৃক্ষরোপণ খাতের ঘাটতি দূর করতেই মূলত বিদেশি কর্মীদের নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে বলে জানানো হয়েছে।
ইতোমধ্যে বাংলাদেশ ও ইন্দোনেশিয়ার মতো দেশে থাকা কর্মীরা সবাই তাদের কোভিড-১৯ টিকা নেওয়া সম্পন্ন করেছেন। আমাদের স্থানীয় নাগরিকরা বৃক্ষরোপণ কাজে আগ্রহী না হওয়ায় আমরা বিদেশি কর্মীদের নিয়োগ দিচ্ছি। আমাদের বিশ্বাস স্থানীয়রাও ধীরে ধীরে এ কাজে পারদর্শী হয়ে উঠবে।
 
এছাড়া দেশটির মানবসম্পদ মন্ত্রণালয় (এমওএইচআর) স্ট্যান্ডিং অর্ডার অব অপারেশন (এসওপি) খসড়া করেছে এবং কুয়ালালামপুর আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের (কেএলআইএ) কাছে একটি বিদেশি শ্রমিক কোয়ারেন্টাইন সেন্টার তৈরি করেছে। যেখানে একসঙ্গে দুই হাজার শ্রমিক থাকতে পারবে।
 
দেশটিতে পাম-অয়েলসহ বাগান খাতে জনবলের ঘাটতি রয়েছে, তা দূরীকরণে মানবসম্পদ মন্ত্রণালয় একমত পোষণ করেছে। রোপণ খাতে শ্রমিকের অভাব জাতীয় আয়ে ক্ষতির ঝুঁকি তৈরি করেছে যা বছরে ২০ বিলিয়ন রিঙ্গিত, বিশেষ করে পাম-অয়েল খাতে।
 
এদিকে, দেশটিতে করোনা মহামারির কারণে দীর্ঘ প্রায় ১৮ মাস বন্ধ থাকার পর অবশেষে দেশটির অর্থনীতির চাকা সচল করতে ১৫ নভেম্বর থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে লংকাউই দ্বীপমালার সব পর্যটন খাত পরীক্ষামূলকভাবে ৩ মাসের জন্য বিদেশি ভ্রমণপিপাসুদের জন্য খুলে দেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী ইসমাইল সাবরি ইয়াকোব।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category
Theme Created By Uttoron Host