রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:৪৩ অপরাহ্ন
নোটিশ
যে সব জেলা, উপজেলায় প্রতিনিধি নেই সেখানে প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। বায়োডাটা সহ নিউজ পাঠান। Email: [email protected]

কুড়িগ্রামে ব্রহ্মপুত্র ও ধরলায় পানি বৃদ্ধি অব্যাহত

হাফিজ সেলিম,কুড়িগ্রাম
Update : শনিবার, ২৮ আগস্ট, ২০২১, ১:১৯ অপরাহ্ন

কুড়িগ্রাম জেলা প্রতিনিধিঃ কুড়িগ্রামে নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে। আজ শুক্রবার বিকাল ৬ টা পর্যন্ত ব্রহ্মপুত্র নদের পানি  চিলমারী পয়েন্টে বিপদসীমার ১১ সেন্টিমিটার ও ধরলা নদীর ব্রীজ পয়েন্টে ২৪ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে বয়ে যাচ্ছে। পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় সার্বিক বন্যা পরিস্থিতির ক্রমেই অবনতি হচ্ছে।
এদিকে, দুধকুমার ও তিস্তার পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকলেও তা এখনো বিপদসীমার নীচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে ।
ফলে জেলার উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া নদ-নদী  অববাহিকার বিস্তীর্ণ নতুন -নতুন এলাকা প্লাবিত হয়েছে । এসব এলাকায় সদ্য রোপন করা আমন ধানের চারা সম্পূর্ণ পানির নিচে তলিয়ে গেছে। তা ছাড়াও  বিভিন্ন সবজি ক্ষেতের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। অতিবৃষ্টি ও পানিতে ডুবে থাকায় গ্রামীন কাচ সড়কের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। ফলে গ্রামগঞ্জের মানুষজন নিদারুণ কষ্টের মুখে পড়েছে ।  নদী তীরবর্তী নিচু এলাকার বেশ কিছু মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। কুড়িগ্রাম সদর উপজেলার যাত্রাপুর ইউনিয়নের চর যাত্রাপুর এলাকার সামছুল আলম জানান, ব্রহ্মপুত্রের পানি বৃদ্ধি পাচ্ছে। তবে এখনও ঘর-বাড়িতে পানি উঠেনি। এভাবে পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকে তাহলে চরাঞ্চলের ঘর-বাড়িতে দ্রুত পানি ঢুকে পড়বে।
অন্যদিকে, খরস্রোতা তিস্তা নদীর ভাঙ্গন তীব্র আকার ধারণ করছে। প্রতিনিয়ত নতুন নতুন এলাকা নদী গর্ভে বিলীন হয়ে যাচ্ছে। এ অবস্থায় নদীর পারের অসহায় মানুষ বসতভিটা হারিয়ে নিঃস্ব হচ্ছে।
কুড়িগ্রাম পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী  আরিফুল ইসলাম জানান, ব্রহ্মপুত্র নদের উজানে ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে ভারি বৃষ্টিপাতের কারনে ব্রহ্মপুত্র ও ধরলার পানি বৃদ্ধি পেয়ে বিপদসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। আগামী দু’একদিনের মধ্যে ধরলার পানি কমতে শুরু করবে। তবে ব্রহ্মপুত্রের পানি আরো বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
Theme Created By Uttoron Host