Templates by BIGtheme NET
Home / জেলার খবর / শৈলকুপায় দু’পক্ষের সংঘর্ষ ,আটক- ৩

শৈলকুপায় দু’পক্ষের সংঘর্ষ ,আটক- ৩

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ঃ সামাজিক অধিপত্য বিসত্মারকে কেন্দ্র করে ঝিনাইদহের শৈলকুপায় দু’পক্ষের ঘন্টাব্যাপী সংঘর্ষে অমত্মত ১২ জন আহত হয়েছে। মঙ্গলবার সকালে উপজেলার উমেদপুর ইউনিয়নের  ব্রাহিমপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এসময় ভাংচুর করা হয়েছে ৭টি বাড়ী ও ১টি মাহেন্দ্র গাড়ী।জানা যায়, দীর্ঘদিন ধরে উমেদপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সাব্দার হোসেন মোল­্যা ও পরাজিত চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাবলুর সমর্থকদের মধ্যে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। এরই জের ধরে মঙ্গলবার সকালে ব্রাহিমপুর গ্রামে উভয় পক্ষের সমর্থকরা দেশীয় তৈরি অস্ত্র ঢাল, সড়কি, রামদা, চাইনজি কুড়াল, চাপাতী, লাঠি-সটা নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এসময় আহত হয় ব্রাহীমপুর গ্রামের আবু বক্কর, মন্নু,  টিটু, নায়েব, লুলু, শাহিনুর, জামিরম্নল, মনিরম্নল ইসলাম বুলুসহ উভয়পক্ষের অন্তত ১২ জন। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। পরে আহতদের উদ্ধার করে শৈলকুপা ও ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এদের মধ্যে দুজনকে ঢাকা মেডিকেলে ভর্তি করা হয়েছে। পরাজিত চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাবলু অভিযোগ করেন, সাবেক ইউনিয়ন আওয়ামীগের সভাপতি জহুর মূধার ভাই তার সমর্থক ধীরেন মৃধাকে  সোমবার সন্ধ্যায় গাড়াগঞ্জ বাজারে মারধর করে সাব্দার হোসেন মোল­ার সমর্থকরা। এদিকে পাল্টা অভিযোগ করে সাবদার হোসেন মোল্যার ছেলে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুবলীগের সভাপতি শামীম হোসেন মোল্যা বলেন, তার সমর্থকরা ভোরে ঘুমিয়ে ছিল। এসময় মিজানুর রহমান বাবলুর সমর্থকরা অতর্কিত হামলা চালিয়ে বাড়ীঘর ও গাড়ী ভাংচুর করে। শৈলকুপা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলমগীর হোসেন জানান, উমেদপুর ইউনিয়নে সামাজিক অধিপত্য বিসত্মারকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের লোকজন সংঘর্ষের ঘটনা ঘটিয়ে।এলাকায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এখন এলাকার পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। এ ঘটনায় আটক করা হয় ৩ জনকে। উদ্ধার করা হয়েছে দেশীয় অস্ত্র।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful