সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪, ০৪:২১ অপরাহ্ন
নোটিশ
যে সব জেলা, উপজেলায় প্রতিনিধি নেই সেখানে প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। বায়োডাটা সহ নিউজ পাঠান। Email: newssonarbangla@gmail.com

মধুখালীতে রমজান মাসে চড়া দামে বিক্রি হচ্ছে সবজি

পার্থ রায়, মধুখালী উপজেলা প্রতিনিধি
Update : সোমবার, ২৬ এপ্রিল, ২০২১, ১২:৫৬ পূর্বাহ্ন

পার্থ রায়, মধুখালী উপজেলা প্রতিনিধি: ফরিদপুরের মধুখালীতে পবিত্র রমজান মাসে চড়া দামে  বিক্রি হচ্ছে সকল প্রকার সবজি। মধুখালী বাজার সহ উপজেলার সকল বাজারে সবজির এরকম চড়া মূল্য থাকায় নাভিশ্বাস উঠেছে ক্রেতাদের।
রোববার মধুখালী বাজারে দেখা যায়, প্রতিকেজি আলু ২০ টাকা, করোলা ৪০ টাকা, বেগুন ৪০ টাকা,গোল বেগুন ১শত টাকা, ধুন্দল ৫০ টাকা, কাঁচা মরিচ ১শত টাকা কেজি, কচুর লতি ৬০ টাকা, পটল ৫০ টাকা,পুঁইশাক ২০ টাকা,শশা ৪০ টাকা,কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। মাঝারি সাইজের লাউ ৪০ টাকা। সবজি বিক্রেতারা জানান, আড়তে বা মোকামে দাম বেড়ে যাওয়ায় আমদেরকে চড়া দামে বিক্রি করতে হচ্ছে।
মধুখালী উপজেলার কয়েকটি এলাকা যেমন মেগচামী,গাজনা ,বেলেশ্বর, মধুপুর,কলাগাছি,নওপাড়া, ব্যাসদি কামারখালী,ডুমাইন এলাকায় সবজির চাষ হয়ে থাকে। এখন ঐসব এলকায় কম পরিমানে সব সবজি রয়েছে। তারপরও পাশ্ববর্তী মাগুরা ,ঝিনাইদহ হতে সবজি আমদানি করতে হচ্ছে। দাম চড়া হওয়ার কারনে ক্রেতাদের খুবই সমস্যা হচ্ছে।
এ ছাড়া রমজান মাসে বাঙ্গি,তরমুজের চাহিদা থাকে বেশি। তরমুজ ৫৫ টাকা কেজি দরে এবং মাঝারি সাইজের বাঙ্গি ৬০ ,একটু বড় সাইজের বাঙ্গি ১শত ৫০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। ৪ টি লেবু ২০/৩০ টাকা করে বিক্রি হচ্ছে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ক্রেতা জানান, বাজারে সবজির মূল্য বেশি হওয়ায় ক্রেতাদের বাজার করতে যেয়ে হিমশিম খেতে হয়। চাষীরা জানান সারা বছরই কোন না কোন সবজির চাষ করেন তাঁরা। তবে অন্য সময়ের তুলনায় বর্তমানে সবজির দাম একটু বেশি। এতে করে চাষীরা বেশি লাভবান হচ্ছেন।  বাজারে যথেষ্ট পরিমানে সবজির আমদানি হয়ে থাকে। তারপরও দাম বেশ চড়া। পরিবহন সংকটের কারনে দাম বাড়ছে বলে ক্রেতা ও বিক্রেতাদের ধারনা।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
Theme Created By Uttoron Host