শুক্রবার, ৩১ মে ২০২৪, ০৪:০১ পূর্বাহ্ন
নোটিশ
যে সব জেলা, উপজেলায় প্রতিনিধি নেই সেখানে প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। বায়োডাটা সহ নিউজ পাঠান। Email: newssonarbangla@gmail.com

ডুমুরিয়ার উত্তরাঞ্চলে লকডাউন বাস্তবায়নে প্রশাসনের তদারকি নেই

Reporter Name
Update : শনিবার, ২৬ জুন, ২০২১, ৫:২৮ অপরাহ্ন

খুলনা প্রতিনিধিঃ  করোনা সংক্রমণরোধে দেশের সর্বত্রই চলছে লকডাউন। কিন্তু খুলনার ডুমুরিয়া উপজেলার সাতক্ষীরা হাইওয়ে ব্যতিরেকে ডুমুরিয়া উত্তরাঞ্চলে কোথাও বিধিনিষেধের বালাই নেই। নেই কোথাও কোনো তদারকি। স্বাস্থ্যবিধি না মেনেই অবাধে চলছে যাত্রি বোঝাই যানবাহন। বিপণিবিতানসহ বিভিন্ন দোকানপাট খুলছে কৌশলে। অন্য দিকে করোনায় মৃত্যু ও সংক্রমণ দুটোই পাল্লা দিয়ে বাড়ছে।
আজ শনিবার ডুমুরিয়ার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায়; লকডাউনের বিধিনিষেধ উপেক্ষা করে মানুষ ফুটপাথে হাঁটছে। যাত্রিবোঝাই যানবাহন চলছে। অধিকাংশ মানুষের মুখে মাস্ক নেই। সামাজিক দূরত্বও মেনে চলতে অনীহা। কাঁচাবাজার বা বিপণি বিতানগুলোতে বালাই নেই স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালনের। ডুমুরিয়া উপজেলার শাহপুর বাজারে দেখা যায় দোকানের সার্টার সামান্য খোলা রেখে বিক্রেতা সামনে চৌকিতে বসে আছে। পরিচিত ক্রেতা এলেই খুব সতর্কতার সাথে খুলে ভেতরে নিয়ে মাল সামগ্রী বিক্রি করছে। শাহপুর- ফুলতলা সড়কে পিঁপড়ার সারির মত চলছে থ্রি হুউলার মাহিন্দ্রা, ইজিবাইক, ইঞ্জিন ও ব্যাটারি চালিত ভ্যান। স্বাস্থ্যবিধি জলাঞ্জলী দিয়ে সিরিয়াল দিয়েই যাত্রি বোঝাই করে চলাচল করছে।
২নং রঘুনাথপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক মেম্বর এস এম মেসবাহুল আলম টুটুল বলেন; করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহ রূপ নিলেও জনগণের মধ্যে সচেতনতার অভাব রয়েছে। চলতি লকডাউনে অধিকাংশ জনগণ স্বাস্থ্যািবধি মানছেনা। বাজারের দোকানপাটে কৌশলে বেচাকেনা চলছে। শাহপুর -ফুলতলা সড়কে যাত্রিবোঝাই যানবাহন রীতিমত চলছে। তবে লকডাউনের বিধিনিষেধ বাস্তবায়নের জন্য ভ্রাম্যমাণ আদালত বা প্রশাসনিক তদারকি আরও বাড়ানো উচিত বলে আমি মনে করছি।
২নং রঘুনাথপুর ইউনিয়ন বিএনপির আহবায়ক আব্দুর রব বলেন; সরকার গরিব মানুষের খাবারের বিষয়টি নিশ্চিত করে লকডাউন দিলে বিধিনিষেধ মানতে বাধ্য হতো। শাহপুর বাজারে অনেক প্রসাধনী ও কাপড়ের দোকানে মহিলা ক্রেতাদের ঢুকিয়ে সার্টার টেনে দিচ্ছে এটা খুব আপত্তিকর। তাছাড়া ক্ষুদ্র ঋণের কিস্তি আদায়ের ব্যাপারে এনজিও কর্মীরা বেপরোয়া হয়েছে। তবে প্রত্যন্ত অঞ্চল বলে প্রশাসন এখানে আসেনা তাই লকডাউনের বাস্তবায়ন নেই।
ডুমুরিয়া থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ওবায়দুর রহমান বলেন; আমি রঘুনাথপুর পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জকে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য বলে দিচ্ছি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
Theme Created By Uttoron Host