মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ০৩:৫৩ পূর্বাহ্ন
নোটিশ
যে সব জেলা, উপজেলায় প্রতিনিধি নেই সেখানে প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। বায়োডাটা সহ নিউজ পাঠান। Email: newssonarbangla@gmail.com

আমের রাজধানী খ্যাত নওগাঁর সাপাহারে বৃহৎ আমবাজারে ধ্বস আমচাষীরা দিশেহারা

আইনুল ইসলাম, নওগাঁ
Update : রবিবার, ২৭ জুন, ২০২১, ৫:১৪ অপরাহ্ন

আইনুল ইসলাম, নওগাঁ জেলা প্রতিনিধি: মৌসুমী ফল আমের বাণিজ্যিক রাজধানী হিসেবে পরিচিতি নওগাঁ জেলা। এখানকার আম উৎপাদনকারীরা বছরের প্রথম থেকেই বৈরি আবহাওয়ায় উৎপাদন কমে যাওয়ার আশংকা করে আসছিলো। এরপর করোনা পরিস্থিতিতে যানবাহনের অভাবে পাইকারি ক্রেতার সংখ্যা তুলনামুলক কম থাকায় আম বাজারজাতকরণ নিয়েও যথেষ্ট চিন্তিত ছিলেন তারা। মে মাসের শেষে আম পাড়ার মৌসুম শুরু হবার আগে আমের বাজারজাতকরণে সরকারের গৃহীত নানান পদক্ষেপে তারা যখন আবার আশাবাদী হয়ে উঠছিলেন এবং শুরুতে বাজারে আমের দাম যখন আম চাষীদের মনে কিছুটা স্বস্তি দিচ্ছিল ঠিক তখনি সারা দেশে কঠোর লকডাউনের ঘোষনা নওগাঁর সাপাহারে আমের বাজারে তার প্রভাব ফেলেছে। বর্তমানে বাজারে ব্যাপারীগন আম কেনা একরকম বন্ধ করে দেয়ায় আমাচাষীরা হতাশাগ্রস্থ হয়ে পড়েছেন। নওগাঁ জেলার সবচেয়ে বড় আম বাজার সাপাহার উপজেলায়, ঘোষনামতে কঠোর লকডাউন আসতে আরোও কয়েক দিন বাকী থাকলেও শনিবার থেকেই আম কিনছে না পাইকারী ব্যবসায়ীরা। বাজারে নিয়ে আসা আম নিয়ে দারুন বিপাকে পড়েছেন আমচাষীরা। আম বিক্রেতা ও আম চাষিদের বক্তব্য, কঠোর লকডাউন ঘোষণার কারণে বাজারে ক্রেতা নেই। আর সে কারণে আম বিক্রি হচ্ছেনা। পাইকাররাও বাইরের জেলা থেকে আসতে ভয় পাচ্ছে, যে কয়জন পাইকার এসেছেন লকডাউনের মধ্যে তাদের কেনা আম বিক্রি করার কোন জায়গা থাকবে কিনা সে চিন্তা মাথায় রেখে তারা প্রায় আম কেনা ছেড়ে দিয়ে অলস সময় কাটাচ্ছেন। কঠোর এই লকডাউনের কারণে যদি আম উৎপাদনকারীরা সঠিকভাবে আম বিক্রি ও ন্যায্য মূল্য না পায় তাহলে চলতি মৌসুমে আম নিয়ে তাদের শেষ আশাটুকুও ধূলিসাৎ হয়ে যাবে। শনিবার ও রবিবার সকাল থেকে অসংখ্য আম বিক্রেতাদের সারি সারি আমের লাইন নিয়ে বিকেল পর্যন্ত বসে থাকতে দেখা গেছে এবং সামান্য যে কয়েক মন আম বিক্রি হতে দেখা গেছে তাও গতকয়েক দিনের বাজার দরের অধের্কের চেয়েও কম। ক’দিন আগেই সাপাহারে যে আম বিক্রি হয়েছিল সর্বোচ্চ ২হাজার ৬শ’ টাকা মন দরে। আজ রবিবারে সে মানের আম বিক্রি হয়েছে সর্বোচ্চ ১হাজার ২শ’টাকা মন টাকা দরে। এ তথ্য জানিয়েছেন বাজারের অসংখ্য আম বিক্রেতাগন। অসহায় আমচাষীদের মতে, করোনাকে কেন্দ্র করে বাজারে হয়তো এক শ্রেণির আম ব্যবসায়ী সিন্ডিকেট তৈরীর পায়তারা করতে পারে। ভবিষ্যতে কোন ব্যবসায়ী কিংবা ব্যক্তি গোষ্ঠি যাতে আম নিয়ে কোন সিন্ডিকেট তৈরী করতে না পারে সেজন্য তারা প্রশাসনের তদারকি এবং নজরদারী কামনা করেছেন। আড়তের মালিকগন বলছেন, লকডাউনে ব্যপারীদের কেনা আম তারা বাইরে বিক্রি করতে পারবে কিনা এ চিন্তা করে আম কিনছে না। সব মিলিয়ে নওগাঁর সাপাহারের আমচাষীগন তাদের কষ্টার্জিত উৎপাদিত আম নিয়ে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
Theme Created By Uttoron Host