সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪, ০২:৩০ পূর্বাহ্ন
নোটিশ
যে সব জেলা, উপজেলায় প্রতিনিধি নেই সেখানে প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। বায়োডাটা সহ নিউজ পাঠান। Email: newssonarbangla@gmail.com

প্রাথমিকের বদলির অনলাইন আবেদন শনিবার ৩০ মার্চ থেকেআগামী ১ এপ্রিল পর্যন্ত

এনএসবি ডেস্ক:
Update : রবিবার, ৩১ মার্চ, ২০২৪, ১১:১০ পূর্বাহ্ন

এনএসবি ডেস্ক: সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও সহকারী শিক্ষকদের নিজ উপজেলা বা থানায় বদলির অনলাইন কার্যক্রম শনিবার (৩০ মার্চ) শুরু হয়েছে, চলবে আগামী ১ এপ্রিল পর্যন্ত। আবেদনকারীদের তথ্য এবং সহযোগিতার জন্য বিভাগওয়ারি কয়েক কর্মকর্তাকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।এ বিষয়ে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের সহকারী পরিচালক মো. তৌহিদুল ইসলাম স্বাক্ষরিত অফিস আদেশ বলা হয়, শিক্ষকদের অনলাইনে বদলির আবেদন বিষয়ে জিজ্ঞাসা ও তথ্যগত সহযোগিতার জন্য অধিদফতরের পলিসি ও অপারেশন বিভাগের গবেষণা কর্মকর্তা ফ. খ. ম সাজ্জাদুল ইসলাম (ফোন নম্বর: ০১৭১১৪০৭৭৮০) রাজশাহী ও চট্টগ্রাম বিভাগের দায়িত্বে থাকবেন। খুলনা ও বরিশালের দায়িত্বে থাকবেন অধিদফতরের পলিসি ও অপারেশন বিভাগের শিক্ষা অফিসার ফরিদা আক্তার লুনা (ফোন নম্বর: ০১৭১৬০২৭৬৩৯), রংপুর ও সিলেটের দায়িত্বে থাকবেন পলিসি ও অপারেশন বিভাগের শিক্ষা অফিসার তাবশিরা ইসলাম লিজা (ফোন নম্বর: ০১৩৩২৫১০১৩৩) এবং ঢাকা ও ময়মনসিংহ বিভাগের দায়িত্বে থাকবেন পলিসি ও অপারেশন বিভাগের শিক্ষা অফিসার আকিকুজ্জামান (ফোন নম্বর: ০১৩৩২৫১০১৪৪)।

অপর এক আদেশে জানানো হয়, ৩০ মার্চ থেকে ১ এপ্রিল পর্যন্ত শিক্ষকেরা অনলাইনে বদলির আবেদন করতে পারবেন। ২ এপ্রিল প্রধান শিক্ষক আবেদন যাচাই করবেন। ৩ ও ৪ এপ্রিল পর্যন্ত সহকারী উপজেলা/থানা শিক্ষা অফিসাররা আবেদন যাচাই শেষ করবেন। ৫ থেকে ৭ এপ্রিল উপজেলা/থানা শিক্ষা অফিসাররা আবেদন যাচাই ও অগ্রগতি শেষ করবেন।  আরও বলা হয়, ৮ থেকে ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার সহকারী শিক্ষকের আবেদন যাচাই ও অনুমোদন এবং প্রধান শিক্ষকের আবেদন যাচাই ও অগ্রগতি সম্পন্ন করবেন। ১৫ থেকে ১৭ এপ্রিল বিভাগীয় উপপরিচালক আবেদন যাচাই ও অনুমোদন করবেন। এদিকে শিক্ষকদের বদলির আবেদনের বিষয়ে একাধিক শর্ত দিয়েছে অধিদফতর। শর্তে বলা হয়েছে, শিক্ষকেরা সর্বোচ্চ তিনটি বিদ্যালয় পছন্দের ক্রমানুসারে পছন্দ করবেন। তবে কোনো শিক্ষকের একাধিক পছন্দ না থাকলে একটি বা দুটি বিদ্যালয় পছন্দ করতে পারবেন। আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বদলির আদেশ জারি হলে তা বাতিল করার জন্য পরবর্তী সময় কোনো আবেদন গ্রহণযোগ্য হবেন না।
অধিদফতর আরও জানায়, আবেদনকারী শিক্ষকের পছন্দক্রম অনুযায়ী বদলি হওয়ার নিশ্চয়তা নেই। একাধিক আবেদনকারীর পছন্দকে সফটওয়্যারের মাধ্যমে নির্বাচিত করা হয়।
দেশে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকদের বদলির অনলাইন আবেদন শুরু হয় ২০২২ সালের ১৫ সেপ্টেম্বর। প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সর্বশেষ বার্ষিক প্রতিবেদনের তথ্য বলছে, বর্তমানে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় আছে ৬৫ হাজার ৫৬৬টি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
Theme Created By Uttoron Host