শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:৪৮ অপরাহ্ন
নোটিশ
যে সব জেলা, উপজেলায় প্রতিনিধি নেই সেখানে প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। বায়োডাটা সহ নিউজ পাঠান। Email: [email protected]

চুয়াডাঙ্গা সড়কে ট্রাক চাপা দিয়ে স্ত্রী হত্যার অভিযোগ স্বামীর বিরুদ্ধে

Reporter Name
Update : মঙ্গলবার, ১৯ জানুয়ারী, ২০২১, ১২:৫১ অপরাহ্ন

স্টাফ রিপোর্টার, ঝিনাইদহঃ ঝিনাইদহ চুয়াডাঙ্গা সড়কের আনসার ক্যাম্পের সামনে ট্রাকচাপায় নিহত হয়েছেন দিপালী রানা নামে এক হোটেল কর্মচারী। সোমবার রাত দশটার দিকে পিছন দিক থেকে একটি ট্রাক তাকে চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই তিনি নিহত হন। কার শরীর থেতলে ছিন্নভিন্ন হয়ে যায়। ঝিনাইদহ শহরের চুয়াডাঙ্গা বাস স্ট্যান্ডে ঐশী হোটেলের কর্মচারী নিহত দিপালী রানী কালীগঞ্জ উপজেলার সাদিপুর গ্রামের ট্রাকচালক স্বপন কুমার দাসের প্রথম স্ত্রী। ঐশী হোটেলের মালিক শ্রী নিতাই কুমার ঘোষ জানান, হোটেলের কাজ শেষ করে রাত দশটার দিকে দিপালী রানী খড়ি ব্যবসায়ী জামাল হোসেন এর সাথে কোর্ট পাড়ায় ফিরছিলেন। তারা আনসার ক্যাম্পের সামনে রাস্তায় পৌঁছালে একটি দ্রুতগামী ট্রাক চাপা দিলে দিপালী রানী ঘটনাস্থলেই নিহত হয়। অভিযোগ পাওয়া গেছে দ্বিতীয় বিয়ের পর স্বামীর সঙ্গে দিপালী রানী সম্পর্কের অবনতি ঘটে। ট্রাকচালক স্বামী বেশ কয়েকদিন ধরেই দিপালী রানী কে হত্যার হুমকি দিয়ে আসছিল। হোটেল মালিক নিতাই কুমার ঘোষের ভাষ্যমতে ৬ দিন আগে দিপালী রানী কে তার স্বামীর পাঠানো লোকজন হত্যার ছক আটে। অনেকের ধারণা ট্রাকচালক স্বামী পরিকল্পিতভাবে দিপালী রানী কে ট্রাক চাপা দিয়ে হত্যা করতে পারে। বিষয়টি তদন্ত করলেই এই রহস্য বেরিয়ে আসতে পারে। এদিকে দিপালী রানী নিজের নাম গোপন করে ঐশী হোটেলে ফাতেমা আক্তার নামে চাকরি নেওয়ার বিষয়টি রহস্যজনক হয়ে উঠেছে। হিন্দু হয়ে তিনি কেন মুসলিম নাম ধারণ করলেন তা নিয়ে নানা প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। গভীর রাত হাওয়াই পুলিশের কোনো বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি। এই দুর্ঘটনায় ঐশী হোটেলের খড়ি ব্যবসায়ী লক্ষীকোল গ্রামের ইলাহি ম-লের ছেলে জামাল মন্ডল গুরুতর আহত হয়ে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন।
২ বছর পর আলিম হত্যা মামলার রহস্য উদঘাটন
জাহিদুর রহমান তারিক, ঝিনাইদহঃ ঝিনাইদহ পিবিআই দীর্ঘ দুই বছর পর আলিম হত্যা মামলার রহস্য উদঘাটন করলো। এ ঘটনায় মুল আসামী আব্দুস সালাম শুক্রবার মাগুরা বিজ্ঞ আদালতে ফোজদারী কার্যবিধির ১৬৪ধারায় স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দি প্রদান করেছেন। রবিবার দুপুরে ঝিনাইদহ পিবিআই কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানানো হয়। সংবাদ সম্মেলনে পিবিআই পুলিশ সুপার মাহাববুর আলম জানান, ২০১৮ সালের ২৬সেপ্টেম্বর মাগুরা জেলার শ্রীপুর উপজেলার চর চাকদা গ্রামের গড়াই নদীতে অজ্ঞাত একটি লাশ গ্রামবাসী দেখতে পেয়ে পুলিশকে খবর দেয়। পরে পুলিশ এসে লাশ উদ্ধার করে। লাশ উদ্ধারের পর আলিমের বাবা নবুয়ৎ মন্ডল জব্দকৃত আলামত দেখে তার ছেলে আলিমের লাশ বলে শনাক্ত করে। ছেলে নিখোজের ঘটনায় আলিমের বাবা নবুয়ৎ মন্ডলের শ্রীপুর থানায় করা সাধারণ ডায়েরি পরবর্তী মামলা হিসাবে গ্রহণ করা হয়। মামলাটির তদন্ত ভার পাই শ্রীপুর থানার এসআই জাহাঙ্গীর হোসেন। দায়িত্ব নেয়ার পর এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে ৭জনকে গ্রেফতার করেলেও , কোন তথ্য উদঘাটন করতে না পারায় ১বছর পর ২০১৯সালের ২৬সেপ্টেম্বর আদালতে চুড়ান্ত প্রতিবেদন দেয়া। বিজ্ঞ আদালত নথি পর্যালোচনা করে মামলাটি পুনঃতদন্ত করার জন্য পিবিআই ঝিনাইদহকে দায়িত্ব দেয়। পিবিআই ১বছরের বেশি সময় তদন্ত করে এ ঘটনার মূল বিষয় উদঘাটন করতে সক্ষম হয়। সেই সাথে জড়িত মূল আসামী আব্দুস সালামকে গত ১৫জানুয়ারি গ্রেফতার করে। পিবিআই পুলিশ সুপার আরো জানান, স্ত্রীর সাথে আব্দুল সালামের ছোট ভাই লিটনের পরকিয়ার বিষয়টি জানতে পারে আলিম। পরে গ্রাম্য সালিশে সালামের ভাইকে নাকে খত দিতে হয়েছিলো। এর প্রতিশোধ নিতেই আলিমকে হত্যা করে সালাম।

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
Theme Created By Uttoron Host