Monday, April 6, 2020, 8:23 pm

সংবাদ শিরোনাম :
করোনা সংক্রমণ রোধে ঝিনাইদহে কঠোর অবস্থানে পুলিশ পাথরঘাটার প্রবীন আওয়ামী লীগ নেতা এড.গোলাম কবির আর নেই বিয়ের আগেই সন্তান প্রসব, দুলাভাই আটক সাধারণ ছুটি আগামী ১৪ই এপ্রিল পর্যন্ত ঢাকায় প্রবেশ ও বের হতে কড়াকড়ি ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুরে গ্রামবাসির স্বেচ্ছায় লকডাউন মংলা বন্দরে কর্মহীন হয়ে পড়েছে হাজার হাজার শ্রমিক ডুমুরিয়ার ভান্ডারপাড়া আবাসনে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করলেন ইউএনও ১১ এপ্রিল পর্যন্ত পোশাক কারখানা বন্ধ রাখতে বিজিএমইএ’র আহ্বান বাগেরহাটে ৮ শতাধিক শ্রমিকদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ আসাফো সারা দেশে অসহায় মানুষের খাদ্য সাহায্য করে আসছে বরগুনার পাথরঘাটায় চাল আত্মসাৎকারী চেয়ারম্যান আলাউদ্দিন পল্টু আটক

করোনা পরিস্থিতির কারণে খুলনায় এনজিও ঋণের কিস্তি আদায় বন্ধ

করোনা পরিস্থিতির কারণে খুলনায় এনজিও ঋণের কিস্তি আদায় বন্ধ

করোনা পরিস্থিতির কারণে  খুলনায় এনজিও ঋণের কিস্তি আদায় বন্ধ
ফাইল ছবি

মোঃ আনোয়ার হোসেন আকুঞ্জী, খুলনা ঃ প্রাণঘাতি করোনা থেকে বাঁচতে ব্যবসা ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান অধিকাংশই বন্ধ করতে হচ্ছে। ফলে দিনমজুর তথা খেটে খাওয়া মানুষেরা শ্রম বিক্রি করতে পারছেন না। ফলে ঋণগ্রস্থদের কিস্তি পরিশোধে নাভিশ্বাস উঠছে। তবে বর্তমান পরিস্থিতি বিবেচনায় ডুমুরিয়াসহ খুলনার সব উপজেলায় আগামি ৩ জুন পর্যন্ত সকল এনজিওকে ঋণের কিস্তি আদায় বন্ধ করতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। আজ মঙ্গলবার (২৪ মার্চ) থেকে খুলনা জেলা প্রশাসক ও করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ জেলা কমিটির সভাপতি মোহাম্মদ হেলাল ০৫.৪৪.৪৭০০.০২২.১৮.০০২.২০ নং স্মারকে এ নির্দেশনা প্রদান করেন। করোনা ভাইরাস থেকে বাঁচতে সচেতনতার বিকল্প নেই।  লোক সমাগমের কারণেও করোনা ছড়াতে পারে। তাই জনগণকে হাটবাজার থেকে শুরু করে সব কাজে ঘরের বাইরে কম যেতে বলা হয়েছে। তাছাড়া করোনা রোধে প্রশাসনের পক্ষ থেকে জোর প্রচারণা চালানো হচ্ছে।
খবর নিয়ে জানা যায়, আশা, ব্র্যাক, গ্রামীণ, বন্ধুকল্যাণ, জনতা, দারিদ্র বিমোচন ফাউন্ডেশন, জাগরনী চক্রসহ খুলনা প্রায় অর্ধশত এনজিও ঋণ কার্যক্রম চালিয়ে আসছে। এসব এনজিও থেকে লক্ষাধিক মানুষ বিভিন্ন মেয়াদে ঋণ সুবিধা নিয়েছেন। সপ্তাহের ছুটির দিন ব্যতিত প্রতিদিনই এনজিও কর্মীরা কিস্তি আদায় করছিলেন। কিন্তু শ্রমজীবী ও নিম্ন আয়ের মানুষের কাজ বন্ধ হওয়ায় তারা কিস্তি দিতে পারছেন না।
বর্তমান পরিস্থিতি বিবেচনা করে আজ মঙ্গলবার (২৪ মার্চ) খুলনা জেলা প্রশাসক ও করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ জেলা কমিটির সভাপতি মোহাম্মদ হেলাল ০৫.৪৪.৪৭০০.০২২.১৮.০০২.২০ নং স্মারকে এ ক্ষুদ্র ঋণের কিস্তি আদায় কার্যক্রম স্থগিত রাখার জন্য নির্দেশনা প্রদান করেছেন। নির্দেশনায় বলা হয়েছে
মাইক্রোক্রেডিট রেগুলেটারি অথরিটি কর্তৃক প্রেরিত বর্তমানে ভাইরাস জনিত কারণে বিশ্ববাণিজ্যের পাশাপাশি দেশের ব্যবসা বাণিজ্যের নেতিবাচক প্রভাবে প্রতিষ্ঠানের ঋণ শ্রেণিকরণ ও ঋণ আদায় সংক্রান্ত নির্দেশনা মোতাবেক আগামি ৩ জুন ২০২০ পর্যন্ত ক্ষুদ্র ঋণের কিস্তি আদায় কার্যক্রম স্থগিত রাখার জন্য নির্দেশনা প্রদান করা হলো তবে কোন ঋণ কিস্তি পরিশোধ করলে তা গ্রহণ করা যাবে।।ডুমুরিয়া উপজেলার কৃষ্ণনগর গ্রামের  দিনমজুর শঙ্করী মÐল, হাসানপুর গ্রামের আমেনা, চেঢ়ুড়ি গ্রামের শেফালী, রংপুরের দিপালী, শাহপুর গ্রামের রোজিনা, থুকড়ার সোহরাব শোলগাতিয়া গ্রামের আয়শাসহ  অন্তত: ১৫জন  বলেন; তারা কেউ শ্রমিক আবার কেউ দিনমজুর। এনজিও থেকে লোন নিয়ে গরু- ছাগল পালন করছেন। আবার কেউ ক্ষুদ্র ব্যবসা করছেন। আবার কেউ ঘেরে মাছ ছেড়েছেন।  তারা এলাকার বাহিরে গিয়ে বিভিন্ন কাজ করে থাকেন। কিন্তু করোনা ভাইরাস আতঙ্কে গ্রামে এবং বাহিরে কোথাও কাজের জন্য যেতে পারছেন না। অথচ এনজিও কর্মিরা ভোরে বাড়িতে এসে বসে কিস্তির জন্য চাপ দিচ্ছে। কিস্তি দিতে না পারলে অকথ্য ভাষায় গালি গালাজ করছে। নিরুপায় হয়ে ধার দেনা করে কিস্তি দিতে হচ্ছে। এখন কিস্তি আদায় বন্ধ হওয়ায় তারা স্বস্তি ফিরে পেয়েছেন।ডু মুরিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোছা. শাহনাজ  বেগম জানান;  যে সমস্ত হতদরিদ্র খেটে খাওয়া মানুষ বিভিন্ন এনজিও থেকে ঋণ নিয়েছিলেন বর্তমান পরিস্থিতিতে তাদের ঋণের কিস্তি দিতে অসুবিধা হচ্ছিল। এ বিষয়টি আমি অত্যন্ত গুরুত্বের সাথে দেখে জেলা প্রশাসক মহোদয়কে অবহিত করলে সার্বিক দিক বিবেচনায় করোনা পরিস্থিতি শিথিল না হওয়া পর্যন্ত এনজিগুলোকে আগামী ৩ জুন পর্যন্ত কিস্তি আদায় না করতে নির্দেশ দিয়েছেন খুলনা জেলা প্রশাসক মহোদয়।
   









দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন অথবা রেজিস্টার করুন

© All rights reserved © 2018 Newssonarbangla