Templates by BIGtheme NET
Home / জাতীয় / সড়ক ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের আগমনে সড়ক সংস্কারে সওজের ব্যস্ততা

সড়ক ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের আগমনে সড়ক সংস্কারে সওজের ব্যস্ততা

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি:  বুধবার কুষ্টিয়া সরকারি কলেজ মাঠে জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি থাকবেন সড়ক ও পসতু মন্ত্রী এবং বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। বিকেলে তিনি সেখানে বক্তব্য রাখবেন। এ উপলে জেলায় ব্যাপক উৎসব মুখর পরিবেশ বিরাজ করছে। শহর ও সরকারি কলেজ এলাকায় তোরণ ও ব্যানার ফেস্টুনে ভরে গেছে।

এদিকে মন্ত্রীর আগমনে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন সড়ক ও জনপথ বিভাগের (সওজ) কর্মকর্তা ও শ্রমিকেরা। তারা গত কয়েক দিন ধরে রাত দিন কাজ করে সড়ক মেরামতে ব্যস্ত সময় পার করছেন। এ কয়দিন কর্মকর্তা ও শ্রমিকদের ছুটি দেওয়া হয়নি। এমনকি তারা সব সময় সড়কেই কাটাচ্ছেন।

মন্ত্রীর আগমন উপলে সওজের লোকজন জেলার সড়কগুলোর ভাঙাচোরা জায়গা  মেরামতে সড়ক ও জনপথের (সওজ) কর্মকর্তা-কর্মচারী ও শ্রমিকেরা রাতদিন কাজ করে চলেছে। তবে এলাকাবাসীর অভিযোগ এই সড়কগুলোতে গত কয়েক বছর ধরে কোটি কোটি টাকা খরচ করে সংস্কারের নামে বিল তুলে নিয়েছে ঠিকাদারেরা। এতে সহযোগিতা ও যোগসাজসে ছিল সওজের কর্মকর্তারা। বিষটি নিয়ে জেলা সমন্বয় সভাসহ বিভিন্নভাবে জেলা প্রশাসনের ফেসবুকে তুলে ধরেছে সচেতন নাগরিক। তারপরও কোন কাজ হয়নি। তবে মন্ত্রীর আগমনে সওজের লোকজন সড়ক মেরামতে উঠে পড়ে লেগেছে।

সংস্কার করা সড়কগুলো হল কুষ্টিয়া-ঝিনাইদহ, কুষ্টিয়া-ঈশ্বরদী মহাসড়ক ও কুষ্টিয়া-রাজবাড়ি আঞ্চলিক সড়ক। এ তিনটি সড়কের বেশ কয়েক জায়গায় ভাঙাচোরা ও গর্ত রয়েছে। সড়ক ও সেতু মন্ত্রীর আগমনের আগাম খবর পেয়ে গত ১৫ দিন ধরে  মেরামতের কাজ করছেন তারা।

তবে কুষ্টিয়া সওজের নির্বাহী প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম বলেন, মন্ত্রীর আগমনে সড়ক মেরামত করা হচ্ছে না। এটা নিয়মিত কাজ। সড়ক ভেঙে গেলে বিভাগীয় ভাবে তা মেরামত করা হয়।

গত তিন দিন ধরে কুষ্টিয়া শহরের মজমপুর এলাকা, পুলিশ লাইনের সামনে, জিলা স্কুলের সামনে খানাখন্দে অংশে বালু ও ইট পাথর পিচ দিয়ে ভরাট করতে দেখা  গেছে। সড়কের আশেপাশের দোকানদাররা জানান, ‘মন্ত্রী আসছে, তাই এখন ভাঙ্গা রাস্তা মেরামত করছে। এর আগে রাস্তাটা কেউ ঠিক করতে আসে নাই।’

মজমপুর এলাকার বাসিন্দারা জানান, ভাঙা সড়কে ইট বালু ফেলে ধুলির সৃষ্টি হয়ে  গেছে। এতে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। ভেজা বালির ট্রাক গেলে কাদার মতো হয়ে যায়। মজমপুর ট্রাফিক মোড়ে প্রতিদিনই দুই থেকে তিনটা ট্রাকের চাকা ফেটে যায়। এতে যানজটের সৃষ্টি হয়।

১৫ দিন ধরে সড়কে বেশি কাজ করার ব্যাপারে সওজের এক কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, মন্ত্রী আসার খবর আগেই পাওয়া গেছে। তাই ভাঙা জায়গা ঠিক করা হচ্ছে। সড়কে যান চলাচল উপযোগী করা হচ্ছে।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful