Templates by BIGtheme NET
Home / জাতীয় / সাতক্ষীরার তালা উপজেলার প্রাথমিক শিক্ষার আমূল পরিবতন

সাতক্ষীরার তালা উপজেলার প্রাথমিক শিক্ষার আমূল পরিবতন

নিজস্ব প্রতিনিধি: আর প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে ঝরেপড়বেনা একটি শিশুও, শিক্ষা থেকে বঞ্চিত হবে না কোন পরিবার। প্রাথমিক শিক্ষায় ব্যাপক পরিবতন এসেছে সাতক্ষীরার তালা উপজেলায়। প্রাথমিক শিক্ষার মান-উন্নয়ন এবং অফিসের সেবা প্রদানের বিভিন্ন কমসূচি গ্রহণ করেছেন উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ অহিদুল ইসলাম। শিশুর খেলতে খেলতে শেখা আর সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে প্রাথমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে আকষনীয় ও আনন্দঘন পরিবেশ তৈরি করেছেন উপজেলা শিক্ষা কমকতা মোঃ অহিদুল ইসলাম ।

বিদ্যালয় হতে আর একটি শিশুও ঝরেপড়বে না এমন উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন তিনি। সমাজে অথনৈতিকভাবে পিছিয়ে থাকা পরিবারের সমত্মানদের বিদ্যালয়ে ভতি ও নিয়মিত উপস্থিতি বৃদ্ধির লক্ষে তাদের দেওয়া হচ্ছে বিভিন্ন শিক্ষা উপকরণ- স্কুলড্রেস, খাতা আর কলম। নিয়মিত মা ও অভিভাবকদের নিয়ে সমাবেশ করছেন প্রত্যেকটি বিদ্যালয়ে। উপজেলা শিক্ষা কমকতা মোঃ অহিদুল ইসলাম বলেন মায়েরা নিজের জীবনের চেয়ে সমত্মানকে বেশি ভালোবাসেন এবং জীবনের সবশ্রেষ্ঠ বিনিয়োগ তার শিশুকে পড়ালেখা করানোসহ তিনি শিক্ষার গুরম্নত্ব তুলে ধরেন মায়েদের কাছে।  শিশুর ইংরেজি ও বাংলা বিষয়ে দক্ষতাবৃদ্ধি এবং প্রতিটি শিশু যাতে দেখে দেখে ইংরেজি ও বাংলা পড়তে ও লেখতে পারে তার জন্য নেওয়া হয়েছে প্রত্যেক বিদ্যালয়ে ব্যতিক্রমধমী উদ্যোগ।  শিশুর বিষয়ভিত্তিক প্রামিত্মকযোগ্যতা অজনের লক্ষে নিধারন করে দেয়া অধ্যায়ের পাঠদানশেয়ে শ্রেণিতে মূল্যায়ন, শিশুর পরীক্ষার ভিতি দুর করার জন্য নেওয়া হচ্ছে মাসিক ও দ্বি-মাসিক মূল্যায়ন। শিক্ষকদের পাঠদানের দুবলদিক চিহ্নিত করে উন্নয়নের জন্য আয়োজন করেছেন নিজ উদ্যোগে বিশেষ প্রশিক্ষনের। ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনিমানে নেওয়া হয়েছে প্রশংসিত উদ্যোগ। সকল শিক্ষকের নামে ই-মেইল আইডি খোলা এবং সকল প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নামে ফেইসবুক আইডি খুলে তথ্য আদান-প্রদানের কাজ পরিচালনা করেন।

এছাড়া জীব-বৈচিত্রের পরিবতনের সাথে সাথে নেওয়া হয়েছে ব্যাপক কমসূচি। প্রতিটি বিদ্যালয়ে ফলদ, বনজ এবং ঔষধি বৃক্ষের চারা রোপনের ব্যবস্থা করা হয়েছে। বজ্রপাতের ক্ষয়ক্ষতি সহনীয় মাত্রায় রাখার বজ্র নিরোধের জন্য প্রতিটি বিদ্যালয়ে রোপনের ব্যবস্থা করা হয়েছে তালবৃক্ষর চারা। প্রাথমিক শিক্ষার মানউন্নয়নের পাশাপাশি এই বহুমাত্রিক উন্নয়ন সম্ভব হয়েছে উপজেলা শিক্ষা অফিস হতে ঘুষ, দুনীতি আর শিক্ষকদের অযথা হয়রানি দুর করার কারনে। শিক্ষাকসহ সুবিধাভোগীরা নিধারিত সময়ের আগেই পেয়ে যান তাদের পাওনা। উপজেলা প্রতিষ্ঠারলগ্ন থেকে এই প্রথম ঘুষ, দুনীতি আর হয়রানীমুক্ত হলো তালা উপজেলা। যার ফলে আমত্মরিকতার সাথে শ্রেণির পাঠদান করান শিক্ষকগন। আর এমনই জানালেন হরিশ্চন্দ্রকাটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষিকা তিথি চক্রবতী। তিনি বলেন তালা উপজেলার শিক্ষকগণ এখন ঘুষ, দুনীতি আর হয়রানী হতে মুক্ত। স্বাচ্ছন্দে দায়িত্বপালন করছেন তারা। অন্যদিকে বিভিন্ন পরিকল্পনা গ্রহণের কারনে বেড়েছে প্রাথমিক শিক্ষার গুনগত মান।তালা উপজেলা শিক্ষা কমকতা মোঃ অহিদুল ইসলাম বলেন,সমাজে অথনৈতিকভাবে পিছিয়েপড়া পরিবারের শিশুকে শিক্ষারমূল ধারায় আনার জন্য শিক্ষাকে তাদের নিকট আকষনীয় এবং আনন্দঘন পরিবেশসৃষ্টির লক্ষে প্রতিমাসের বেতনের কিছু টাকা দিয়ে শিশুদের স্কুলড্রেস, খাতা, কলমসহ বিভিন্ন শিক্ষা উপকরণ কিনে দেই। শিশুকে নিয়মিত স্কুলে ধরে রাখার জন্য বিভিন্ন বিনোদনমূলক অনুষ্ঠানের ব্যবস্থা গ্রহন করেছি।শিশুর জ্ঞান বিকাশের লক্ষে আমত্মঃ বিদ্যালয় বিতক প্রতিযোগিতাসহ বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে। রাঢিপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শিখারানি চৌধুরী বলেন যেকোন শিক্ষক তার নিজের সমস্যা নিয়ে নিজেই অফিসে আসেন,শিক্ষকদের সমুস্যার কথা মনোযোগ সহকারে উপজেলা শিÿা অফিসার শুনেন এবং সমস্যার দ্রম্নত সমাধানের ব্যবস্থা করেন। তাছাড়া শিক্ষা অফিসে পূব হতে চলে আসা নিয়মিত এবং মৌসুমী সকল প্রকার ঘুষ, দুনীতি ও শিক্ষকদের অযথা হয়রানীর সকলপথ নিমূল করেছেন উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ অহিদুল ইসলাম। Satkhira Ahidul Islam.TEO.Tala-picযার ফলে শিক্ষকগণ আমত্মরিক হয়ে শ্রেণির পাঠদান পরিচালনাসহ সকল কাজে সহযোগিতা করেন। উপজেলা শিÿা অফিসার মোঃ অহিদুল ইসলাম বলেন জীবনের সবশ্রেষ্ঠ বিনিযোগ হচ্ছে শিশুকে শিক্ষিত করা। মা তার জীবনের চেয়ে তার সমত্মানকে সবচেয়ে বেশি ভালোবাসেন। আর এ লক্ষ্যেকে সামনে রেখে সমাজে সকলশ্রেণি ও পেশার পরিবারের শিশুকে একই ধারায় আনার জন্য আমি মা সমাবেশ, সামাজিক উদ্বুদ্ধকরণ সভাসহ বিভিন্ন কমসূচি গ্রহণ করেছি। স্থানীয়রা জানান সমাজে সকলশ্রেণি ও পেশার পরিবারের শিশুকে একই ধারায় আনতে পারলে জনসংখ্যা জনসম্পদে পরিনত হয়ে তারা পরবতীতে জাতীয় উন্নয়নে অগ্রনী ভূমিকা পালন করবে। একই সাথে সমাজের সকলশ্রেণির মানুষের জীবনযাত্রার মান উন্নয়ন হবে। উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ অহিদুল ইসলাম এর এ ধরনের কাযক্রম চালু থাকলে অথনৈতিক ও শিক্ষা ক্ষেত্রে পিছিয়ে থাকা অবহেলিত তালা উপজেলার মানুষের জীবনযাত্রার মান উন্নত হবে। আজকের শিশু দক্ষ জনশক্তিতে পরিনত হয়ে জাতীয় উন্নয়নে অগ্রণী ভূমিকা পালন করবে। অন্যদিকে শিক্ষক ও সেবা গ্রহিতিরা রেহাই পাবেন ঘুষ ও অযথা হয়রানি হতে।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful