Templates by BIGtheme NET
Home / জেলার খবর / পাথরঘাটায় ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রকে আক্রোশ মুলক মারধর করেছে শিক্ষক

পাথরঘাটায় ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রকে আক্রোশ মুলক মারধর করেছে শিক্ষক

barguna20160408155202-300x165

অমল তালুকদার,বরগুনাথেকে:পাথরঘাটায় পিতার সাথে পুর্বের বিরোধের জের ধরে আক্রোশ মুলক ষষ্ঠ শ্রেণির এক ছাত্রকে মার-ধর করে গুরতর আহত করেছে এক শিক্ষক। আহত ছাত্রকে পাথরঘাটা হাসপাতালের ডাঃ হারুর অর রশিদের অধিনে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। এ ঘটনায় শিক্ষকের বিচার চেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার বরাবরে লিখিত অভিযোগ করেছেন আহত ছাত্রের পিতা। এলাকাবাসী ও লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে উপজেলার জ্ঞানপাড়া খলিফারহাট মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের হিসাবরক্ষক (সহকারি শিক্ষক) রুস্তুম আলী গত ২২ মার্চ বুধাবার সাংবাদিক জাফর ইকবাল’র পুত্র ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্র মো. জাইদ ইকবালকে শ্রেণি কক্ষে বসে আক্রোশমুলক মারধর করে। এতে ছাত্রটির ডান চোখ ও ডান গালে প্রচন্ড আঘাত পায় সে। পরে তাকে পাথরঘাটা হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়। সূত্র জানায় প্রায় ৫ বছর পূর্বে রুস্তুম আলী বিবাহিত হওয়া সত্বেও তারই বিদ্যালয়ের এক ছাত্রীকে ফুসলিয়ে নিয়ে এলাকা ত্যাগ করে। পরে গোপনভাবে ছাত্রীকে বিয়েও করে সে। ঘটনাটি মামলায় গড়ায়। ছাত্রীর পিতা রুস্তুমের নামে মামলা দায়ের করেন। নানাকারনে একপর্যায় ওই ছাত্রীর পিতা বিবাহ মেনে নিতে বাধ্য হন। চরিত্রহীন রুস্তুম কয়েক মাস সংসার করে ওই ছাত্রীকে তালাক প্রদান করে। তখন ওই ছাত্রী যাতে ন্যায় বিচার পায় সে ব্যাপারে পাথরঘাটা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক দৈনিক সংবাদের পাথরঘাটা উপজেলা প্রতিনিধি,সাংবাদিক জাফর ইকবাল বিদ্যালয় ব্যবস্থাপনা কমিটিকে সহযোগীতা করেন। কুকর্মের কারনে রুস্তুম প্রায় এক বছরেরও বেশী সময় সাময়িক বরখাস্ত থাকেন। পুনরায় রুস্তুম আলী চাকরি ফিরে পেয়ে সাংবাদিক জাফর ইকবাল এর ওপর বিভিন্ন সময় আক্রশ মুলক ব্যবহার করতে থাকে। তারই ধারাবাহিকতায় সাংবাদিকের সাথে বিরোধের জের ধরে আক্রশ মুলক বুধবার শ্রেণি কক্ষে তার পুত্রকে মেরে খাকিটা প্রতিশোধ নেন বলে জাফর ইকবাল অভিযোগ করেন। জাইদ ইকবালকে এলোপাথারি চর-থাপ্পর মারায় সে এখন রুস্তম আলীর ভয়ে ওই বিদ্যালয়ে যেতেও ভয় পাচ্ছে বলে তার পরিবার জানায়। উল্লেখ্য রুস্তুম আলীর বয়স ৩০ বছর না হলেও এরই মধ্যে সে কয়েকটি বিয়ে করেছে। বিদ্যালয়টির পরিবেশ অক্ষুন্ন রাখতে কর্তৃপক্ষের যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহন করা উচিত বলে মনে করছেন অভিভাবক মহল। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. খালেক নাজিরের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন আমি এব্যপারে যথাযথ ব্যবস্থা নেব। এব্যাপারে রুস্তুম আলীর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন আমি সাংবাদিকের ছেলেকে চিনিই না। উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাহ মো.কামরুল হুদা বিষয়টি মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোস্তফা মিয়াকে তদন্তপূর্বক জরুরী ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন বলে জানান।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful