Templates by BIGtheme NET
Home / জেলার খবর / কেশবপুরে গ্রুপিংয়ের আগুনে পুড়ছে বিএনপি

কেশবপুরে গ্রুপিংয়ের আগুনে পুড়ছে বিএনপি

মশিয়ার রহমান,কেশবপুর(যশোর) : যশোরের কেশবপুরে শক্ত অবস্থানে থাকা বিএনপি দলীয় গ্রম্নপিংয়ের আগুনে পুড়ে খাক হচ্ছে। কেশবপুরে বিএনপির আভ্যমত্মরীন দ্বন্ধের জের ইউনিয়ন ছাপিয়ে গ্রামাঞ্চল পর্যমত্ম বিসত্মার করেছে। যার কারনে বিভিন্ন দলীয় কর্মসূচি পৃথক পৃথক ভাবে দুটি অফিসে পালিত হচ্ছে। কেশবপুরে বিএনপির ভিতর দু’ধারায় সাংগঠণিক কর্মকান্ড চলছে। যার একটি অংশের নের্তৃত্ব দিচ্ছেন বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও কেশবপুর থানা বিএনপির সভাপতি আবুল হোসেন আজাদ,অপর অংশের নের্তৃত্ব দিচ্ছেন বিএনপির যশোর জেলা কমিটির সহ-সভাপতি সাবেক কেশবপুর থানা শাখার সভাপতি ও মজিদপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবু বকর আবু ও কেশবপুর পৌর বিএনপির সভাপতি ও সাবেক মেয়র আবদুস সামাদ বিশ্বাস। দলীয় নেতা কর্মীরা এ বিভাজনের কারনে দলীয় কর্মকান্ডে অংশ নিতে আসছে না।

থানা বিএনপির সভাপতি আবুল হোসেন আজাদ বেশির ভাগ সময় ব্যবসায়ীক প্রয়োজনে ঢাকাতে ও বিদেশে অবস্থান করায় দলের বিভিন্ন কর্মসূচিতে তিনি অনুপস্থিত থাকায় আবু বকর আবু ও আবদুস সামাদ বিশ্বাসের নের্তৃত্বে কর্মসূচি পালন হয়ে থাকে। এ ছাড়া আবুল হোসেন আজাদ কোন কর্মসূচিতে হাজির থাকলে অপর অংশের নেতা কর্মীরা পৃথক ভাবে কর্মসুচি পালন করে আসছে। যা নিয়ে নেতা কর্মীদের ভিতর বিরাজ করছে চরম হতাশা।  গত বিজয় দিবসের দিনে দু’গ্রম্নপ পৃথক পৃথকভাবে বিজয় সত্মম্ভে পুষ্প সত্মবক অর্পণ ও দিবসটি পালনে কর্মসূচি পালন করে। উপজেলার ১১ টি ইউনিয়ন ও পৌর এলাকার বিভিন্ন ওয়ার্ডে গ্রম্নপিং চরমে পৌচেছে।

মেয়াদ উত্তির্ণ বিএনপি,যুবদল, ছাত্রদলসহ অঙ্গ সংগঠণের  কমিটি দিয়ে চলছে রাজনৈতিক কর্মকান্ড। যার কারণে মাঠ পর্যায়ে সাধারণ নেতা কর্মীদের উপস্থিতি নেই বললেও চলে। পত্রিকায় নাম না প্রকাশের শর্তে তৃণমুল পর্যায়ের নেতা কর্মীদের সাথে আলাপকালে তারা জানান, বর্তমান সভাপতি ব্যবসায়ীক কাজে কেশবপুরের বাইরে থাকায় কর্মসূচি পালনে সমস্যা হয়ে থাকে। এ ছাড়া বিএনপি নেতা আবু বকর আবু ও আবদুস সামাদ বিশ্বাস এর নের্তত্বে দলের কর্মসুচি পালিত হয়ে থাকে। আবুল হোসেন আজাদ ও আবু-সামাদ এক হয়ে কাজ করলে তাদের মনের কষ্ট থাকতো না। এ ছাড়া প্রতিটি ইউনিয়নে বিএনপির কমিটি গঠণে পকেট কমিটি করার প্রচেষ্টা করায় দলের ভিতর গ্রম্নপিং আরও জোরালো হয়ে উঠেছে। নেতাদের পছন্দের ব্যক্তিদের কমিটির দায়িত্বশীল পদে নেয়ার অপচেষ্টা চলার খবর জেলা বিএনপির নের্তবৃন্দের কানে পৌছানোর কারনে বিএনপির ইউনিয়ন কমিটি গঠনের কাজ বর্তমানে বন্ধ রয়েছে বলে একাধিক দায়িত্বশীল নের্তৃবৃন্দ স্বীকার করেছেন। এছাড়া আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার জন্য দলের কাছে মনোনয়ন চাওয়ার প্রস্ত্ততি নিয়েছেন ৪ জন প্রার্থী। তারা হলেন, বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও থানা বিএনপির সভাপতি আবুল হোসেন আজাদ, যশোর জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি ও কেশবপুর থানা বিএনপির সাবেক সভাপতি চেয়ারম্যান আবু বকর আবু, থানা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও কেশবপুর পৌর বিএনপির সভাপতি সাবেক মেয়র আব্দুস সামাদ বিশ্বাস ও জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের কেন্দ্রীয় সিনিয়র সহ-সভাপতি মোসত্মাফিজুর রহমান। মনোনয়ন প্রত্যাশী নেতারা প্রতিনিয়ত তৃণমুল পর্যায়ের নেতা কর্মীদের সাথে কুশল বিনিময় করে চলেছেন। সাংগঠণিক বিষয়ে আলাপকালে কেশবপুর পৌর বিএনপির সভাপতি ও সাবেক মেয়র আবদুস সামাদ বিশ্বাস বলেন,বড় দলে একটু ঝামেলা থাকতেই পারে। তিনি গ্রম্নপিংয়ের কথা অস্বিকার করেছেন।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful